হেডলাইন

টাকা আত্মসাতের দায়ের গাংনীর বামুন্দীর সোনালী সেভিংসের মালিক হামিদুলের ২ বছরের জেল

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

গাংনীর বামুন্দী সোনালী সেভিংস ক্রেডিট কো অপারেটিভ লিমিটেডের পরিচালক হামিদুল ইসলামকে ২ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। এসময় ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে আরো ১ মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়। মঙ্গলবার দুপুরের এ আদেশ দেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট jel 24মো: হাদিউজ্জামান। দন্ডপ্রাপ্ত হামিদুল ইসালাম উপজেলার মটমুড়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে। মামলা সূত্রে জানা গেছে,বামুন্দী হাটপাড়ার বাসেদ আলীর ছেলে আহসান আলী ২০১৩ সালের ১১ নভেম্বর সোনালী সেভিংস ক্রেডিট কো অপারেটিভ লিমিটেডের পরিচালক হামিদুল ইসলামের কাছে ২ লক্ষ টাকা জমা দেন। যার রশিদ নং ৭০৩। পারিবারিক প্রয়োজনে টাকা ফেরত চাইলে নানা অজুহাতে দিনের পর দিন ঘুরাতে থাকে। নিরুপায় হয়ে আহসান আলী মেহেরপুর আদালতে হামিদুল ইসলামের নামে মামলা দায়ের করে। মামলা নং ৩১০/১৩। আদালত ৩জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে এ জেল জরিমানা করে। বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন রফিকুল ইসলাম ও আসামী পক্ষে রমজান আলী।

সাবেক প্যানেল মেয়র ও যুবলীগ নেতা রিপন হত্যা মামলায় গাংনীর ২জন সহ ৪ জনের যাব্বজীবন কারাদন্ড

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম,

মেহেরপুর পৌর সভার সাবেক প্যানেল মেয়র ও যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান রিপন হত্যা মামলায় গাংনীর দুজন সহ ৪ জনের যাব্বজীবন কারাদন্ড দিয়েছে অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ ও স্পেশাল ট্রাবুন্যাল আদালত। এসময় তাদের প্রত্যেককে ১ লক্ষ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ২ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়। সোমবার দুপুর ২টার দিকে এই রায় ঘোষনা করেন অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ ও স্পেশাল ট্রাবুন্যাল আদালতের বিচারক মো: নুরুল ইসলাম। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, মেহেরপুর শহরের আব্দুল হালিম, রাদিুল ইসলাম (আকালী), গাংনী থানাপাড়ার সেকেন্দার আলীর ছেলে মাসুদ রানা ও ওলিনগর গ্রামের আরশেদ আলীর ছেলে লাল্টু। মামলার বিবারণে জানা গেছে, ২০১১ সালে ১ এপ্রিল 1মেহেরপুর শহরের হোটেল বাজারে পৌর সভার সাবেক প্যানেল মেয়র ও যুবলীগ নেতা মিজানুর রহমান রিপনের নিজ ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে দৃর্বৃত্তরা বোমা হামলা চালায়। এসময় প্যানেল মেয়র সহ চার জন আহত হয়। পরে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৮ এপ্রিল রিপন মারা যায়। নিহত রিপনের পিতা আব্দুল হালিম ঘটনার পরের দিন সদর থানায় পৌরসভার কাউন্সিলর সাবেক মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতু,আব্দুল্লাহ আল মামুন বিপুল কে আসামী করে হত্যা ও বোমা হামলার দুটি মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ তদন্তের পর ২০১৪ সালে এস আই সবুজ এই মামলার চার্জশিট আদালতে দাখিল করেন। সেসময় সাবেক মেয়র মোতাচ্ছিম বিল্লাহ মতুকে অভিযোগ পত্র থেকে তার নাম বাদ দেয়া হয় পরে আদালত ৩২ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে আজ চার জনকে যাব্বজীবন কারাদন্ড প্রদান করেন। রায় ঘোষনার সময় মেহেরপুর শহরের আব্দুল হালিম, রাদিুল ইসলাম (আকালী) আদালতে উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া গাংনী থানাপাড়ার সেকেন্দার আলীর ছেলে মাসুদ রানা ও ওলিনগর গ্রামের আরশেদ আলীর ছেলে লাল্টু অনুপস্থিত ছিলেন। প্রসঙ্গত : ২০১৪ সালে রিপন হত্যা মামলার প্রধান আসামী পৌরসভার কাউন্সিলার আব্দুল্লাহ আল মামুন বিপুল দৃর্বত্তদের গুলিতে নিহত হয়।

গাংনীতে পৃথক ঘটনায় দুজনের মৃত্যু

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ”

মেহেরপুরের গাংনীতে পৃথক ঘটনায় রকিবুল ও সাহাবউদ্দীন নামের দুজনের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার রাতে উপজেলার হাড়িয়াদহ ও চরগোয়ালগ্রামে এসিড ও বিষপানে এ মৃত্যু’র ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানায়, bnpরকিবুল ইসলাম একটি মিনি ট্রাকে চড়ে বাড়ি আসছিল। ওই ট্রাকের মধ্যে একটি এসিডের বোতল ছিল। পানি ভেবে ওই বোতলের পানি পান করে সে। পরে অসুস্থ্য হলে তাকে গাংনী উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে পরের দিন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার আরো অবনতি দেখে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে সোমবার চিকিতসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। রকিবুল ইসলাম গাংনী উপজেলার হাড়িয়াদহ গ্রামের বিছার উদ্দীনের ছেলে। অপরদিকে পারিবারিক কোলহের জেরে উপজেলার চরগোয়াল গ্রামের হিফাজ সর্দ্দারের ছেলে সাহাবউদ্দীন বিষপান করে। রবিবার সকালে চিকিতসাধীন অবস্থায় গাংনী হাসপাতলে তার মৃত্যু হয়।

গাংনীতে শিশু ধর্ষকের বিচার দাবীতে নাগরিক সমাজের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ঃ

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্রী ধর্ষণের অভিযুক্ত ধর্ষক তাহাজ উদ্দীনের গ্রেফতার ও বিচারের দাবীতে মানববন্ধন করেছে গাংনীর নাগরিক সমাজ ।পরে গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। রবিবার সাড়ে ১০ টার সময় আধা ঘন্টা ব্যাপি মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কের গাংনী উপজেলা পরিষদের গেটের সামনে এ মানববন্ধন করে তারা। এসময় গাংনী উপজেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, গাংনী 111উপজেলা নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ফোরামের সহকারী সম্পাদক সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম অল্ডাম, গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক মহিবুর রহমান মিন্টু,গাংনী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পারভেজ সাজ্জাদ রাজা, পীরতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও স্বেচ্ছাব্রতী নেতা আব্দুল হাদি, তুরিন সহ প্রায় ৪ শতাধীক বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ মানব বন্ধনে অংশ নেয়। এসময় হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করে। হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা দুলাল, ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আমানুল্লাহ, সহসভাপতি শাজাহান আলী, স্থানীয় ইউপি সদস্য জেকের আলীসহ গ্রামবাসিরা উপস্থিত ছিলেন। হিন্দা মাঠপাড়া এলাকার মৃত আবুল কাশেমের ছেলে তাহাজ উদ্দীন গত ৭ সেপ্টেম্বর বিকালে হিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেনীর ছাত্রীকে তার মেয়ে নাজমার বান্ধবীর কথা বলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। বিষয়টি মেয়ে তার পরিবারকে জানালে স্থানীয়রা ধর্ষকের বাড়িতে যায়। এসময় ধর্ষক তাহাজ উদ্দীন পালিয়ে যায়। পরদিন সকালে ধর্ষিতা মেয়েটিকে পুলিশ উদ্ধার করে ডাক্তারী পরীক্ষা সমপন্ন করেন। এ বিষয়ে গাংনী থানায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার নং ৯, তারিখ ০৯/০৯/১৮ ইং। উল্লেখ্য, লম্পট ধর্ষক তাহাজের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিকবার ধর্ষনের অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি একটি ধর্ষন মামলায় জেল হাজত থেকে জামিনে এসে আবারও ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত আসামী।ধর্ষক বর্তমানে পলাতক রয়েছে।

অস্ত্র গুলি ও ম্যাগজিন সহ গাংনীর অস্ত্র ব্যবসায়ী আবু সাইদ টুনু আটক

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :

poic a 2অস্ত্র গুলি ও ম্যাগজিন সহ মেহেরপুরের গাংনীর অস্ত্র ব্যবসায়ী আবু সাইদ টুনুকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার রাতে মেহেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুস্তাফিজুর রহমানের নেতৃত্বে পুলিশ মেহেরপুর শহরের যক্ষা ক্লিনিকের সামনে একটি ইজিবাইকে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র গুলি সহ তাকে আটক করে। আবু সাঈদ টুনু গাংনী উপজেলার কাজীপুর গ্রামের আব্দুর রহমানের ছেলে। রবিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আটক অস্ত্র pic a 1ব্যবসায়ী যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত একটি হত্যা মামলার পলাতক আসামী। তার অস্থায়ী বাড়ি শহরের পোষ্টঅফিস পাড়ায়। সে আগামী সংসদ নির্বাচনকে অস্থিতিশীল করতে একটি রাজনৈতিক দলের পক্ষে অস্ত্র আমদানী করছিলো। ছদ্মবেশে সে অস্ত্র ব্যবসা করতো। তার কাছ থেকে দুইটি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, ১০ রাউন্ড গুলি, ৪টি ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।

গাংনীতে বোমা দুটি বোমা উদ্ধার

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ”

মেহেরপুরের গাংনীতে চাদার টাকা না পেয়ে দোকানের সামনে বোমা রেখে গেছে চাদাবাজরা। শনিবার উপজেলার তেতুলবাড়িয়া হাজী পাড়ার আলাউদ্দীনের দোকানের সামনে রাতের কোন এক সময় বোমা দুটি রাখা হয়। রবিবার সকালে বোমা দুটি উদ্ধার করে পুলিশ। দোকান মালিক আলাউদ্দীন b24জানান,কিছুদিন আগে চাদাবাজরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে একলক্ষ টাকা চাদা দাবি করে। চাদার টাকা না পেয়ে বোমা দুটি দোকানের সামনে রেখে যায় চাদাবাজরা। এছাড়া বোমা রাখার বিষয়টি রাতেই মোবাইল ফোনে আমাকে জানায় চাদাবাজরা।হিন্দা পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই আব্বাস উদ্দীন জানান,দোকান মালিক আব্বাস আলী ও স্থানীয়দের কাছ থেকে বোমা রাখার বিষয়টি জানতে পায়। পরে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে বোমা দুটি উদ্ধার করি। গাংনী থানার ওসি হরেন্দ্র নাথ সরকার জানান,উদ্ধারকৃত বোমা দুটি লাল টেপ দিয়ে মড়ানো ছিলো। ইতোমধ্যে পানি ভর্তি বালতিতে রেখে বোমা দুটি প্রাথমিক অবস্থায় নিস্ক্রিয় করা হয়েছে। তবে চাদাবাজদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। স্থানীয়রা জানায়,বোমা রাখার ঘটনায় এলাকার সাধারন মানুষের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। দ্রত সময়ের মধ্যে চাদাবাজদের শনাক্ত করে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানান।

আবারো সাময়িক বরখাস্ত হলেন গাংনীর ভাটপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমান

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম :

মেহেরপুরের গাংনীর কুঠিভাটপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমান আবারো সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন। প্রায় ৩ লক্ষ টাকা আত্মসাত মামলায় সে জেল হাজতে যাওয়ায় নিয়ম
অনুযায়ী সাময়িক বরখাস্ত হন তিনি। এর আগে ২৯/১১/২০১৫ ইং তারিখে অর্থ আত্মসাত করার অভিযোগে সাময়িক বরখান্ত হয়েছিলেন। এদিকে প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমান অর্থ আত্মসাতের s bm 24মামলায় জেলে যাওয়ার ঘটনায় এলাকায় দিনভর আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠে। গাংনী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাশার জানান,কোন শিক্ষক মামলায় জেলা কারাগারে থাকলে বিধি মোতাবেক সাময়িক বরখাস্ত হবেন। একারনে প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমান সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন। বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আবুল বাশার জানান,বরখাস্তের বিধি জানা নেই তাই রবিবার শিক্ষা অফিসারের সাথে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সহকারী প্রধান শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম বলেন,প্রধান শিক্ষক জেলে যাওয়ায় কারনে বিধি মোতাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। যদিও শিক্ষা অফিস থেকে এখনও কোন এ ধরনের আদেশ দেয়া হয়নী। উল্লেখ্য : ভাটপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সাবেক
gangniসভাপতি জিয়ারুল ইসলাম (মুকুল) বাদী হয়ে ২০১৬ সালে মেহেরপুর আদালতে প্রায় ৩ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমানের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি বিজ্ঞ বিচারক আমলে নিয়ে গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন আদালত। তদন্ত শেষে গাংনী থানার সেকেন্ড অফিসার সুভাষ চন্দ্র দাম সাম্প্রতি মামলাটি প্রাথমিক অবস্থায় সত্যতা পাওয়া যায় মর্মে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর আদালত প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমানকে আদালতে হাজির হওয়ার সমন জারি করে। বৃহস্পতিবার সমনের ধার্য তারিখে হাজিরা দিতে গেলে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট হাদিউজ্জামান তাকে জেলা কারাগারে পাঠনোর নির্দেশ দেন।

আদালতে জবানবন্দী দিলেন গাংনীর সেই প্রেমিকা

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’

মেহেরপুরের গাংনীর মটমুড়া গ্রামের সেই প্রেমিক আব্বাস আলীর যৌন লালশার শিকার শান্তার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পর্ন্ন করা হয়েছে। শনিবার মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে তার ডাক্তারী পরীক্ষা করানো হয়। পরে আদালতে জবানবন্দী দেন তিনি। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই বিশ্বজিত জানান, শান্তার পিতা আরজুল্লাহ বাদী হয়ে যৌন নির্যাতনকারী আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে গাংনী থানায় ধর্ষন মামলা করে। photo-1479202119যার নং ২৩ তাং ১৪-০৯-২০১৮ ইং। মামলার প্রেক্ষিতে শান্তার ডাক্তারী পরীক্ষা করা হয়েছে। পরে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ২২ ধারা মোতাবেক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে জবানবন্দী দেন তিনি। উল্লেখ্য ; গত মঙ্গলবার রাতে অভিযুক্ত আব্বাস আলী তার দুলা ভাই সিন্দুরকোঠা গ্রামের আলমের ছেলে রসুলের বাড়ির পিছনে আসতে বললে তার মেয়ে আব্বাস আলীর প্রলোভনে পড়ে ডাকে সাড়া দেয়। পরে ফুসলিয়ে ঐ বাড়ির পিছনে মেহগনি বাগানে নিয়ে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। ধর্ষনের বিষয়ে বিচার চেয়ে উভয় পক্ষ গোপনে একাধিকবার শালিস করলেও স্থানীয় মতব্বররা ব্যার্থ হন। পরে গাংনী থানায় ধর্ষন মামলা করা হয়। শান্তা জানান,গত ১ বছর যাবত আব্বাস আলীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে আব্বাস আলী। বিয়ের জন্য চাপ দিলে টালবাহানা করতে থাকে আব্বাস আলী। একারনে বৃহস্পতিবার বিয়ের দাবিতে তার বাড়িতে অনশন শুরু করি। আব্বাস আলী পুরাতন মটমুড়া গ্রামের সাইফার আলীর ছেলে।

গাংনীর সেই প্রেমিক আব্বাস আলীর নামে ধর্ষন মামলা

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’

মেহেরপুরের গাংনীর মটমুড়া গ্রামের সেই প্রেমিক আব্বাস আলীর নামে এবার ধর্ষন মামলা করা হয়েছে। শুক্রবার শান্তার পিতা আরজুল্লাহ বাদী হয়ে গাংনী থানায় আব্বাস আলীর নামে ধর্ষন মামলা দায়ের thana picকরেন। আব্বাস আলী পুরাতন মটমুড়া গ্রামের সাইফার আলীর ছেলে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই বিশ^জিত জানান, শান্তার পিতা আরজুল্লাহ বাদী হয়ে আব্বাস আলীর বিরুদ্ধে গাংনী থানায় ধর্ষন মামলা করা হয়েছে। যার নং ২৩ তাং ১৪-০৯-২০১৮ ইং। মামলা তদন্ত শেষে দ্রত সময়ের মধ্যে আদালতে অভিযোগ পত্র দেয়া হবে। গাংনী থানার ওসি তদন্ত সাজেদুল ইসলাম বলেন, শনিবার শান্তার ডাক্তারী পরীক্ষা ও আদালতে জবানবন্দী নেয়া হবে। আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। শান্তার পিতা আরজুল্লাহ ও স্থানীয়রা জানান, গত মঙ্গলবার রাতে অভিযুক্ত আব্বাস আলী তার দুলা ভাই সিন্দুরকোঠা গ্রামের আলমের ছেলে রসুলের বাড়ির পিছনে আসতে বললে তার মেয়ে আব্বাস আলীর প্রলোভনে পড়ে ডাকে a s 24সাড়া দেয়। পরে ফুসলিয়ে ঐ বাড়ির পিছনে মেহগনি বাগানে নিয়ে মেেেয়র ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক ধর্ষন করে। ধর্ষনের বিষয়ে বিচার চেয়ে উভয় পক্ষ গোপনে একাধিকবার শালিস করলেও স্থানীয় মতব্বররা ব্যার্থ হন। পরে গাংনী থানায় ধর্ষন মামলা করা হয়। শান্তা জানান,গত ১ বছর যাবত আব্বাস আলীর সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জোর পূর্বক শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে আব্বাস আলী। বিয়ের জন্য চাপ দিলে টালবাহানা করতে থাকে আব্বাস আলী। একারনে বিয়ের দাবিতে তার বাড়িতে অনশন শুরু করি।

গাংনীতে বাল্য বিয়ে দেওয়ায় মৌলভী সহ দুজনের কারাদন্ড

গাংনী নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’

মেহেরপুরের গাংনীতে বাল্য বিয়ে দেওয়ার অপরাধে মৌলভী সহ দুজনকে ৩ দিনের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান অদালত। শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কাজিপুর ইউপির বেতবাড়িয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 41739456_1870205919725672_2518548678977781760_n (1)ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল বলেন, বেতবাড়িয়া গ্রামের সাহেব আলীর মেয়ে ও বেতবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণীর ছাত্রী আয়েশা খাতুনের সাথে পার্শবর্তী পীরতলা গ্রামের মাজহারুল ইসলামের ছেলের সাথে বিয়ে দেয়া হয়। এরপর শতাধিক বর-যাত্রী নিয়ে কনের বাড়িতে আনুষ্ঠানিকতা চলছিল। এমন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। পরে কনের দাদা আবু বক্কর ও বিয়ে পড়ানো মৌলভী নজরুল ইসলামকে ৩ দিনের কারাদন্ড দেয়া হয়। পীরতলা পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই আলী রেজা জানান,কারাদন্ড প্রাপ্ত দুজনকে মেহেরপুর জেলা কারাগার কর্তৃপক্ষের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।

© 2017 SoftItHost
Copy Protected by Chetan's WP-Copyprotect.